সোমবার, জানুয়ারি ১৮, ২০২১ ইং | মাঘ ৫, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২ জামাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

বার্তাপ্রতিক্ষণ / লাইফস্টাইল / করোনার আতঙ্কে ডেঙ্গুকে ভুললে চলবে না

করোনার আতঙ্কে ডেঙ্গুকে ভুললে চলবে না

এখন করোনা ছাড়া যেন কোনো রোগ নেই, করোনা ছাড়া অন্য কোনো রোগের চিন্তা যেমন নেই, তেমনি নেই প্রতিরোধের প্রস্তুতিও।

ডেঙ্গু একটি ভাইরাসজনিত জ্বর যা এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়। এই মশা সাধারণত ভোরবেলা ও সন্ধ্যার পূর্বে কামড়ায়। সাধারণ চিকিৎসাতেই ডেঙ্গু জ্বর সেরে যায়, তবে ডেঙ্গু শক সিনড্রোম এবং হেমোরেজিক ডেঙ্গু জ্বর মারাত্মক হতে পারে।

কিছুদিন আগেও ডেঙ্গু নিয়ে কম ভুগতে হয়নি আমাদের। আবারও সামনে সেই ডেঙ্গু হওয়ার সময়। প্রতিরোধের প্রস্তুতি এখন থেকেই না নিলে, এর ভয়াবহতাও আমাদের দেশের জন্য করোনার চেয়ে খুব কম নয়।

ডেঙ্গু ভাইরাসজনিত রোগ হলেও এর কার্যকর কোনো টিকা এখনো আবিষ্কৃত হয়নি। তাই রোগটি প্রতিরোধ করতে হলে যে কোনোভাবেই হোক, নিজেকে মশার কামড়ের হাত থেকে বাঁচাতে হবে।

**স্ত্রী এডিস মশা সাধারণত অল্প পানিতে, যেমন ঘরের ভিতরে জমে থাকা পানি, টবের পানি, ফ্রিজের পিছনে জমে থাকা পানি ইত্যাদিতে ডিম পাড়ে। তাই ফুলের টবসহ বাসার বিভিন্ন স্থানে জমে থাকা স্বচ্ছ পানি নিয়মিত অপসারণ করুন।

**এডিস মশা সাধারণত দিনের প্রথম ভাগে (সকালে) ও শেষ ভাগে (বিকালে) বেশি কামড়ায়। তবে রাতে ও অন্যান্য সময়ও কামড়াতে পারে। এ জন্য সব সময় মশারি টাঙিয়ে ঘুমানোর অভ্যাস করা উচিত।

**অব্যবহৃত পানির পাত্র ধ্বংস অথবা উল্টে রাখতে হবে যাতে পানি না জমে।

**নিজেদের বাড়িঘর, কার্নিশ ও ছাদে আটকে থাকা স্থির পানি, যা এডিস মশার প্রজননের জন্য আদর্শ ক্ষেত্র, তা ধ্বংস করুন।

**ডেঙ্গু প্রতিরোধের মূলমন্ত্রই হলো এডিস মশার বিস্তার রোধ এবং এই মশা যেন কামড়াতে না পারে, তার ব্যবস্থা করা।

**এডিস মশা, সাধারণত শহুরে অভিজাত এলাকায় দালান কোঠায় বাস করে। ময়লা দুর্গন্ধযুক্ত ড্রেনের পানিতে নয়, বরং স্বচ্ছ পরিষ্কার পানিতে এই মশা ডিম পাড়ে।

**ঘরের বাথরুমে কোথাও জমানো পানি ৫ দিনের বেশি যেন না থাকে। অ্যাকুরিয়াম, ফ্রিজ বা এয়ার কন্ডিশনারের নিচে এবং মুখ খোলা পানির ট্যাংকে যেন পানি জমে না থাকে সে ব্যবস্থা করতে হবে।

**বসতবাড়ির বাইরে মশার বংশ বিস্তার রোধের কাজের দায়িত্ব প্রশাসনে নিয়োজিত ব্যক্তিবর্গকে এখন থেকেই দৃষ্টি দিতে হবে।

ডেঙ্গু হোক বা করোনা-প্রতিরোধের লাগাম কিন্তু আমার হাতে, আমাদের হাতে। প্রয়োজন শুধু আন্তরিক সদিচ্ছার। আমরা প্রত্যেকে যদি নিজের করণীয়টুকু করি, নিজে বিবেকবান হয়ে দায়িত্বশীলতার সঙ্গে নিজের দায়িত্ব পালন করি, তবে শুধু ডেঙ্গু বা করোনা নয়, সামাজিক জীবনের যে কোনো বাধা, অসংগতি সবাই মিলে অতিক্রম করা সম্ভব।

আরও পড়ুন

কোরবানিতে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে যে নিয়মগুলো মেনে চলবেন-

৩১ জুলাই ২০২০

কোরবানিতে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে চাইলে এই ১০ টা নিয়ম... বিস্তারিত এখানে

আলুর রসের উপকারিতা

২৫ জুলাই ২০২০

আলু আমাদের দৈনন্দিন জীবনের খাদ্য তালিকায় একটা অংশ। সবজি হিসেবে... বিস্তারিত এখানে