সোমবার, জানুয়ারি ১৮, ২০২১ ইং | মাঘ ৫, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২ জামাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

বার্তাপ্রতিক্ষণ / আলোচিত খবর / ফাহিম সালেহের খুনি চিহ্নিত, সন্দেহে ব্যবসায়িক লেনদেন

ফাহিম সালেহের খুনি চিহ্নিত, সন্দেহে ব্যবসায়িক লেনদেন

নৃশংসভাবে খুন হওয়া তরুণ উদ্যোক্তা পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ ও দুই সপ্তাহ আগে সদ্য বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতক উমাইর সালেহর হত্যাকাণ্ডে আতঙ্কিত প্রবাসীরা। দু’জনের হত্যাকারীকে পুলিশ এখনো গ্রেপ্তার করতে না পারলেও নিউইয়র্ক পুলিশ ফাহিমের হত্যাকারীকে চিহ্নিত করতে পেরেছে। খবর ডেইলি মেইলের।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফাহিম সালেহ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে বড় ধরনের কোনো ব্যবসায়িক লেনদেন থাকতে পারে। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া এবং হত্যাকারী গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ এ নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানাচ্ছে না।

গত ১৪ জুলাই নিউইয়র্কের নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও’য়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহের ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একদিন পর জানা যায় ফাহিমের মৃতদেহকে বুকের মাঝ বরাবর কেটে খণ্ডিত করা হয়েছে।

বেরিয়ে এসেছে যে, লাশ ব্যাগে ভরার উদ্দেশেই কাটা হয়েছিল, তবে পরে কেউ চলে আসায় তা আর সম্ভব হয়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এনওইয়াইপিডির এসব তদন্তকাজের সঙ্গে জড়িত একজনের মতে, এ ধরনের হত্যাকাণ্ডে দুটি লক্ষ্য থাকে। একটি হচ্ছে, মাফিয়া স্টাইলে অন্যদের ভয়াবহতার বার্তা দেওয়া। অন্যটি হচ্ছে, ব্যক্তিকে একদম শেষ করে দেওয়া। শেষের যুক্তিটিই এখানে প্রাধান্য পাচ্ছে।

নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ফরেনসিক রিপোর্ট থেকে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে যে নিহত ব্যক্তি ফাহিম সালেহ। পুলিশের ধারণা, ফাহিমকে আগে হত্যা করা হয়েছে এবং পরে মরদেহ টুকরো করা হয়েছে, যাতে সেগুলো অনত্র সরিয়ে ফেলা যায়। কিন্তু ফাহিমের খোঁজে তার এক আত্মীয় অ্যাপার্টমেন্টের কলবেল দেওয়ায় খুনি মরদেহ রেখে পালিয়ে যায়। মরদেহ টুকরো করা ইলেকট্রিক করাতও ফেলে যায়, যেটি বৈদ্যুতিক আউটলেটে লাগানো ছিল।

আরও পড়ুন

জুভেন্টাসের কোচ হচ্ছেন আন্দ্রে পিরলো

৩১ জুলাই ২০২০

জুভেন্টাস অনূর্ধ্ব ২৩ দলের কোচ নির্বাচিত হয়েছেন আন্দ্রেয়া পিরলো। এখনো... বিস্তারিত এখানে

কোরবানিতে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে যে নিয়মগুলো মেনে চলবেন-

৩১ জুলাই ২০২০

কোরবানিতে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে চাইলে এই ১০ টা নিয়ম... বিস্তারিত এখানে