সোমবার, মার্চ ২৫, ২০১৯ ইং | চৈত্র ১১, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ রজব, ১৪৪০ হিজরি

বার্তাপ্রতিক্ষণ / আলোচিত খবর / বাংলার ক্ষুদে বিজ্ঞানী সুবর্ণ কে হার্ভার্ডের প্রেসিডেন্টের প্রস্তাব!

বাংলার ক্ষুদে বিজ্ঞানী সুবর্ণ কে হার্ভার্ডের প্রেসিডেন্টের প্রস্তাব!

সুবর্ণ আইজ্যাক বারি। বর্তমান বিশ্বের এক বিস্ময় শিশু। মাত্র ছয় বছর বয়সী কোনো শিশূকে বিশ্বের সবচেয়ে নামকরা বিদ্যাপীঠ থেকে গ্রাজুয়েশন করার জন্য আমন্ত্রন জানালো হলো; ভাবতে পারেন বিষয় টা?

হ্যা! বিশ্বখ্যাত হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তেমনই এক আমন্ত্রন পেলেন বাংলার ক্ষুদে বিজ্ঞানী সুবর্ণ আইজ্যাক বারী।

কে এই সুবর্ন আইজ্যাক বারী?

২০১৩ সাল । এক বছর বয়সী এক শিশু নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালের বেডে জ্বরে কাতরাচ্ছিল। তার বাবা তাকে বললেন,‘আই লাভ ইউ মোর দ্যান এনিথিং ইন দ্য ইউনিভার্স’। সুবর্ণ বলল, ‘ইউনিভার্স অর মাল্টিভার্স?’ কলেজ শিক্ষক বাবা চমকে গেলেন । কিন্তু তখনও তিনি জানতেন না তার এই ছেলে ৩ বছর বয়সে অংক,পদার্থ বিজ্ঞান এবং রসায়নে দক্ষতা দেখিয়ে সারা পৃথিবীকে নাড়িয়ে দিবে।

সেই সুবর্ণ ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে হৈ-চৈ ফেলে দিয়েছে। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সুবর্ণর মেধা বিস্ময় সৃষ্টি করেছে সর্বত্র। স্কুলে না গিয়েও সে কীভাবে জ্যামিতি, বীজগণিতসহ রসায়নের জটিল বিষয়ের সহজ সমাধান দিচ্ছে। অক্ষর জ্ঞানের প্রাতিষ্ঠানিক কোনো প্রক্রিয়া অবলম্বন করা ছাড়াই কীভাবে সে ইংরেজী বই অবলীলায় পাঠ করছে? এসব কথার উত্তর একটাই হয়ত, সে যে বিস্ময় শিশু।

ছবি- ঈদের নামাজে বাবার পাশে দাঁড়িয়ে অংক সমাধান করছেন সূবর্ণ। আল্লাহ কে ভালোবাসা আর গণিত দুটোই পারস্পরিক- সূবর্ণের বইয়ের উদ্ধৃতি

হার্ভার্ড এমন একটি ভার্সিটি সেখানে ভর্তি হওয়া বিশ্বের অনেক মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্যও প্রায় অসম্ভব। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর চাহিদা আবেদনকারীদের মাত্র পাঁচ শতাংশ। ৫০,০০০ উচ্চ মেধাসম্পন্ন শিক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র ২,০০০ শিক্ষার্থী এখানে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়। অথচ সেখানে ভর্তির আমন্ত্রন পেলেন বাংলার ক্ষুদে বিজ্ঞানী সুবর্ণ আইজ্যাক।
সুবর্ণ কে চিঠির মাধ্যমে এই প্রস্তাব টি দেন হার্ভার্ডের প্রেসিডেন্ট ফোষ্ট। এর আগে সুবর্ণ অক্সফোর্ডের ভাইস চ্যান্সেলর ডঃ লুই রিচার্ডসন এর থেকে দুটো পত্র পেয়েছিলেন। কিন্ত প্রেসিডেন্টের পত্র ছোট্ট সুবর্ণ কে কাদিয়েছে। কারণ তার মত সুবর্ণ কে কেউ এতটা পছন্দ আগে করেনি।

ছবি- আমেরিকায় অবস্থানরত বাংলাদেশী সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে সুবর্ণ কে সংবর্ধনা

সুবর্ণের মেধা আর বিস্ময়ে মুগ্ধ হতে তার সাথে বিশ্বের অনেক নামকরা অধ্যাপক, প্রধানমন্ত্রী, নোবেল বিজয়ী ব্যক্তিত্বরা দেখা করেন। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সাথেও সাক্ষাৎ হয় সুবর্ণের। এত কম বয়সে এতসব অর্জন তাকে বানিয়েছে বিশ্বের আলোচিত এক শিশু।

সুবর্ণর জন্ম ২০১২ সালের ৯ এপ্রিল। বাবা-মা দু’জনই বাংলাদেশি, বর্তমানে বসবাস করছেন আমেরিকায়।
সুবর্ণের স্বপ্ন ছিলো দশ বছর বয়সে সে অক্সফোর্ডে ভর্তি হবে। এবার সেই স্বপ্ন নিজে এসে তার কাছেই ধরা দিলো।

আরও পড়ুন

সুখের মাপকাঠিতে পিছিয়েছে বাংলাদেশ

২১ মার্চ ২০১৯

বিশ্ব সুখী দিবসকে সামনে রেখে জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন সমাধান নেটওয়ার্ক... বিস্তারিত এখানে

সাড়ে ৩ লাখ আইফোন বন্ধ করেছে ইরান

১৮ মার্চ ২০১৯

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ইরানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৭০ হাজার... বিস্তারিত এখানে