বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৯, ২০২০ ইং | চৈত্র ২৬, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৩ শাবান, ১৪৪১ হিজরি

বার্তাপ্রতিক্ষণ / আলোচিত খবর / হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলার বিচার শুরু

হলি আর্টিজান

হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলার বিচার শুরু

২০০৯ সালের সন্ত্রাসবিরোধী আইনে ছয় মাসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির সময় বেঁধে দেওয়া রয়েছে। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে হত্যার অপরাধ প্রমাণিত হলে সবোচ্চ মৃত্যুদণ্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে এ আইনে।

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে হলি আর্টিজান বেকারিতে পাঁচ তরুণের ওই হামলায় ১৭ বিদেশি নাগরিকসহ ২০ জনকে জবাই ও গুলি করে হত্যা করা হয়।

নজিরবিহীন ওই হামলা দেশে জঙ্গিবাদের বিপদজনক বিস্তারের মাত্রা স্পষ্ট করে তোলে। বড় ওই ধাক্কা বাংলাদেশকে বদলে দেয় অনেকখানি।

দুই বছরের বেশি সময় ধরে তদন্তের পর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের পরিদর্শক হুমায়ুন কবির গত ২৩ জুলাই হামলায় জড়িত ২১ জনকে চিহ্নিত করে তাদের মধ্যে জীবিত আটজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

চিহ্নিত বাকি ১৩ জন বিভিন্ন অভিযানে নিহত হওয়ায় তাদের অব্যাহতি দেওয়ার সুপারিশ করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, নব্য জেএমবির জঙ্গিরা ছয় মাস ধরে পরিকল্পনা করে ওই হামলা চালিয়েছিল। তাদের উদ্দেশ্য ছিল, দেশকে ‘অস্থিতিশীল’ করা, বাংলাদেশকে একটি ‘জঙ্গি রাষ্ট্র’ বানানো।

পাঁচ তরুণের সরাসরি অংশগ্রহণে হলি আর্টিজান বেকারিতে ওই হামলায় ২০ জনকে জবাই ও গুলি করে হত্যা করা হয়।

পরদিন কমান্ডো অভিযানে নিহত হন হামলাকারী পাঁচ তরুণ – রোহান ইবনে ইমতিয়াজ, মীর সামেহ মোবাশ্বের, নিবরাজ ইসলাম, শফিকুল ইসলাম ওরফে উজ্জ্বল ও খায়রুল ইসলাম ওরফে পায়েল।

ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মুজিবুর রহমান সোমবার এ মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষাগ্রহণ শুরুর জন্য ৩ ডিসেম্বর দিন ঠিক করে দেন।

আসামিদের মধ্যে নব্য জেএমবির সদস্য জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, রাকিবুল হাসান রিগান, রাশেদুল ইসলাম ওরফে র্যাশ, সোহেল মাহফুজ, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান এবং হাদিসুর রহমান সাগরকে অভিযোগ গঠনের শুনানিতে হাজির করা হয়।

বাকি দুই আসামি শহীদুল ইসলাম খালেদ ও মামুনুর রশিদ রিপনকে পলাতক দেখিয়েই এ মামলার বিচার কাজ চলবে।

এ ট্রাইবুনালের পেশকার আতাউর রহমান সাংবাদিকদের জানান, অভিযোগ গঠনের শুনানিতে আদালতে উপস্থিত আসামিদের অভিযোগ পড়ে শোনানো হলে তরা সবাই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার চান।

আরও পড়ুন

আস্থা ভোটে বহাল থাকছে থেরেসা মে’র সরকার

১৭ জানুয়ারি ২০১৯

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে আস্থা ভোটে বহাল থাকছে থেরেসা মে’র সরকার। বর্তমান... বিস্তারিত এখানে

নির্বাচন ছিল প্রশ্নবিদ্ধ ও ত্রুটিপূর্ণঃ টিআইবি

১৬ জানুয়ারি ২০১৯

‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যালোচনার’ প্রাথমিক প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে... বিস্তারিত এখানে